Welcome to this site. Thanks for visit this site.

Welcome to Cjt & scc

No. 1 – Completing Offer Online Completing offer is an easy task that anyone can do. You don’t need any writing skill or any other skills and special knowledge to do it. The process of completing offer is pretty simple. You go to the website that is looking for people to sign up for their free offer, fill out the form on the site, confirmed your email address and done; you have completed an offer that will make you money. Every time when you have complete an offer, you just leave it and wait for the online company to approve it. Your offer will be approved as long as you have completed it. Each approved offer will earn you $0.50 to $1.00. There are also high paid offers that can earn you $5.00 to $50.00 per offer. But you need to enter your credit card details and probably get charge for a small fee when signing up for a high paid offer. By completing 20 to 40 offers monthly, you can earn some nice extra cash every month. Get paid to complete opportunity is only available to US, Canada and UK residents only. Sites that you can join to complete offers: Treasuretrooper.com – Registration required. Currently have over one hundred thousand members. Inside Treasure Trooper you will find hundreds of offers you can complete and earn. The majority are free offers that can be completed easily. These free offers range from $0.50 to $1.00 of earning upon completion. Payout is $20 by Check or PayPal. Treasure Trooper is a real paying site. They were started few years ago.

No. 3 – Sell Your Used Stuff

When you want to sell something online, I’m sure you think of eBay. But, you need to pay a listing fee to sell your item on eBay. The listing charge is not refundable. If your item don’t sell, you still pay the fee. It costs money to make money in eBay.

However, it’s different when you sell in other auction sites such as eBid and Atoncer. Both of the auction sites don’t charge listing fee, meaning anything that you list for sale is free. The sites only charge you a ‘final value fee’ when you’ve sold an item.

The marketplace of eBid and Atoncer aren’t big as eBay but they are quite popular on the Internet as well. Any old or used stuff in your home that you find you can sell, try listing them for sale in eBid and Atoncer. If you’ve sold something successfully, you will make profit. But if your item doesn’t sell, you have nothing to lose and you can list again.

Other than free auction sites, Craiglist is another excellent online marketplace to sell your used stuff. Craiglist is a classified ad site that anyone can take advantage on. There is no cost to post ad in Craiglist except you are posting ad into the job category. The great thing about Craiglist is that it divides the ads by city or region, making it easier to find buyers in your town.

Generating sales through Craiglist is certainly possible. And you can always re-list your ad when your previous ad is getting older. But remember to always include picture when you list any item for sale in Craiglist and also in the auction sites. Adding product picture has proven to be effective for increasing responses dramatically.

Oh.. There is one more marketplace I almost forgot to mention. It’s the famous Amazon. Like eBid and Atoncer, Amazon doesn’t charge listing fee but if you sell an item, they will take a percentage of it.

Your used cell phone can bring you fast cash if you are in US
If you often change cell phone and keep a number of outdated phones over time, don’t throw them away. Online company like Cell for Cash wants you old cell phones. You’ll get money for sending (free shipping) your old cell phone to Cell for Cash.

The cash value of phones range from few dollars to over one hundred dollars, depending on your phone model, capabilities and demand.

You can right away exchange your cell phone for cash by completing three easy steps in CellforCash.com:

1) Choose your phone model in the list
2) Submit details about your phone manufacturer and model
3) Ship your phone and get cash within 45 to 60 days.

No. 2 – Blogging for Cash

Blogging is hot on the Internet now. A lot of people want to start blogging not just because they can make money with it but also they can use the blog as an ongoing self-promotion tool making them popular over time.

The most direct way to start making money blogging is by becoming a paid bloggers of a blog network. Paid blogging job opportunities seem to be growing these days. More and more were posted on the blogging job boards. The pay offers in these blogging jobs were usually in two forms which are either pay per post e.g. $10/post or pay in a monthly basis e.g. Fixed $200/month.

Here are some blogging job sites that you can search for paid blogging opportunities:

ProBlogger Job Board – A job board established by the well known blogger ‘Darren Rowse’. New blogging jobs are updated regularly.

Indeed Job Search Engine – Find the latest blogging jobs listed on different websites.

Bloggerjobs.biz – A blog that updates new blogging opportunities regularly.

Besides blogging job sites, you may check out Weblogs, Inc blog network and the About content networks. Both are quality networks that have opportunities open constantly.

The downsides of blogging for other are that your earning potential is limited and there is almost no self-promotion opportunity for you if you want to build you name in the blogosphere. For this reason, you might want to start your own blog.

It’s easy to start a new blog through using the Blogger platform. With just a few simple steps to take in Blogger.com, you can have your new blog up and running and start writing the topic you’re passionate about. Once you’ve published 5 or more posts on your blog, you can start applying for Google AdSense program to have AdSense ads displaying on your blog. This is a very basis way to earn cash from blogging. There are plenty of other ways and programs that you can use for generating revenue from your blog. Take some time to learn them.

While your blog is small and you’ve earned your first $10. You should buy a custom domain for your blog. A custom name will make your blog looks more professional and it’s easier to build creditability.

Blogging is a wide topic. There are many things to learn for sure. You got to put in a lot of time and effort in blog marketing and content creation if you want to turn your blog into a success. As a new blogger, I would suggest you take some free blog marketing courses:

http://www.bloggingbeginners.com
http://becomeablogger.com/roadmap

With the good blogging knowledge you pick up and hard effort on blog marketing, you could be another blogger that makes a living at home.

Delete হয়ে যাওয়া ফাইল Recover করুন সহজেই

Bottom of Form

Data Recovery সফটওয়্যারের প্রয়োজনীতা কম-বেশী আমরা সবাই বুঝি। সামান্য একটা ওয়ার্ড ডকুমেন্ট মুছে গেলে ও অনেক বড় ক্ষতি হয়ে যেতে পারে যদি সেটা দরকারী ফাইল হয়। ডিলিট হয়ে যাওয়া ফাইল সাথে সাথে উদ্ধার করা তেমন জটিল কোন কাজ না। এর জন্য আপনার প্রয়োজন একটা ভাল ডাটা রিকভারি সফটওয়্যার। অনেক ভাল ভাল ডাটা রিকভারি সফটওয়্যারের নাম আমরা জানি তবে এদের বেশিরভাগই কিনতে হয়। যা সবার পক্ষে সম্ভব হয়না যদি সে পাইরেটেড সফটওয়্যার ব্যবহারের বিরোধী হয়।

তাই নিচে তিনটি ফ্রিওয়্যার ডাটা রিকভারি সফটওয়্যারের ডাউনলোড লিংক দিলাম। আশা করি আপনাদের কাজে আসবে।
১. Recuva – File Recovery
২. PC INSPECTOR™ File Recovery
৩. Restoration

অসাড় প্রোগ্রাম বন্ধ হয়ে যাবে একা একাই

কোন প্রোগ্রাম হ্যাং হয়ে গেলে আমরা সাধারণত কন্ট্রোল+অল্টার+ডিলিট চেপে টাস্ক ম্যানেজারে গিয়ে সেখান থেকে প্রোগ্রামটার টাস্ক এন্ড করে দেই। কিন্তু মাঝে মাঝে কিছুকিছু প্রোগ্রাম এমভাবে হ্যাং হয় যে তখন টাস্ক ম্যানেজারও আর কাজ করে না। অর্থাত্‍ সেই প্রোগ্রামটার সাথে সাথে উইন্ডোজও হ্যাং হয়ে যায়। তখন কম্পিউটার রিস্টার্ট করা ছাড়া আর  কোন উপায় থাকে না। কিন্তু আপনি যদি আগে থেকেই এমন কোন ব্যবস্থা করে রাখেন যে, কোন প্রোগ্রাম হ্যাং হওয়ামাত্রই সেটা স্বয়ংক্রিয়ভাবে বন্ধ হয়ে যাবে, তাহলে উইন্ডোজ হ্যাং হওয়ার কোন সম্ভাবনা থাকবে না এবং আপনিও অনাকাঙ্খিত রিস্টার্ট থেকে মুক্ত হতে পারবেন।

রেজিস্ট্রি এডিটর থেকে খুব সহজেই আপনি এই কাজটা করতে পারেন। এরজন্য প্রথমে Start > Run এ গিয়ে REGEDIT টাইপ করে এন্টার দিয়ে রেজিস্ট্রি এডিটর ওপেন করুন। এরপর রেজিস্ট্রি এডিটর থেকে HKEY_CURRENT_USER\Control Panel\Desktop ওপেন করুন। এখানে ডান পার্শ্বস্থ প্যানেল থেকে AutoEndTasks স্ট্রিংটি ওপেন করে এর ডিফল্ট ভ্যালু 0 কে পরিবর্তন করে 1 লিখে দিন। এবার এডিটর বন্ধ করে কম্পিউটার রিস্টার্ট করুন।

রিস্টার্ট হওয়ার পর অ্যাডবি ফটোশপ জাতীয় দশ-বারোটা ভয়ঙ্কর ভয়ঙ্কর প্রোগ্রাম এক সাথে চালু করে কী-বোর্ড মাউজ সব একসাথে উল্টাপাল্টা টেপাটেপি করতে থাকুন। এর ফলে একটা না হয় একটা প্রোগ্রামতো হ্যাং হবেই। কিন্তু কোন প্রোগ্রামটা হ্যাং হল সেটা বুঝার আগেই দেখবেন প্রোগ্রামটা একা একাই বন্ধ হয়ে গেছে।

Kaoser 01912648258

  • ফায়ারফক্স এবং ইন্টারনেট এক্সপ্লোরারের জন্য কাস্টম সার্চ ইঞ্জিন
  • ওপেন সোর্স ওয়েব ব্রাউজার মজিলা ফায়ারফক্স বা ইন্টারনেট এক্সপ্লোরারে (৭+) সার্চ ইঞ্জিনে না ঢুকে ব্রাউজারের যুক্ত থাকা কাস্টম সার্চ ইঞ্জিনের মাধ্যমে সার্চ করা যায়। এখানে কিছু সাইটের কাস্টম সার্চ ইঞ্জিন যুক্ত করা থাকে। ব্লগ বা যেসব ওয়েব সাইটে সার্চ করার সুযোগ আছে সেসব সাইটে এমন সার্চ ইঞ্জিন থাকলে তা মজিলা ফায়ারফক্সে বা ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার ৭ বা পরবর্তী সংস্করণে কাস্টম সার্চ ইঞ্জিন হিসাবে যুক্ত করা যাবে। এখন দেখবো কিভাবে এমন কাস্টম সার্চ ইঞ্জিন তৈরী করে সাইটে যুক্ত করা এবং ব্রাউজারে যুক্ত করা যায়।
    প্রথমে নিচের সংকেত নোট প্যাডে লিখে search.xml নামে সেভ করুন এবং সাইটের মূল রুটে আপলোড করুন।
  • <?xml version=”1.0″?>
    <OpenSearchDescription xmlns=”http://a9.com/-/spec/opensearch/1.1/”>
    <ShortName>Shamokal Darpon Search</ShortName>
    <Description>Shamokal Darpon – Article Search</Description>
    <Image height=”16″ width=”16″ type=”image/x-icon”>http://www.shamokaldarpon.com/favicon.ico</Image&gt;
    <Url type=”text/html” method=”get” template=”http://www.shamokaldarpon.com/?s={searchTerms}” />
    </OpenSearchDescription>
  • কোড বিশ্লেষণ: ৩য় লাইনে সার্চ ইঞ্জিনের নাম দেওয়া হয়েছে। ৪র্থ লাইনে সার্চ ইঞ্জিনের বর্ণনা দেওয়া আছে। ৫ম লাইনে সার্চ ইঞ্জিনে কোন আইকন দেখাবে তার ঠিকানা দেওয়া আছে। ৬ষ্ট লাইনে সার্চের ফলাফল কোন পাতাতে দেখাবে তা দেওয়া হয়েছে ({searchTerms}এর আগের টুক)।
    এখন সাইটের মূল ফাইলে (হেডার) নিচের কোড যুক্ত করুন। যা আপলোড করা search.xml ফাইলের লোকেশন এবং টাইটেল দেওয়া আছে। যে সাইটের জন্য সার্চ ইঞ্জিন তৈরী করতে চান সেট সাইটের উপযোগী তথ্য দিতে হবে।
  • <link rel=”search” href=”http://www.shamokaldarpon.com/search.xml” title=”Shamokal Darpon Search” />
  • এবার সাইটি ব্রাউজ করলে কাস্টম সার্চ ইঞ্জিনের যায়গায় উজ্জল তারকা দেখাবে যেখানে ক্লিক করে উক্ত সাইটের যুক্ত থাকা সার্চ ইঞ্জিনটি যুক্ত করা যাবে।
    বিস্তারিত সার্চ ইঞ্জিন ব্রাউজারে যুক্ত করার পদ্ধতি ভিডিওসহ পাবেন www.shamokaldarpon.com/?p=1549 এখানে।

 

সহজেই গুগল সার্চের সবগুলো সুবিধা ব্যবহার করা

জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন গুগলে বিভিন্ন ধরনের সার্চ করা যায়। সার্চে এসব সুবিধা পেতে হয় এ্যাডভান্স সার্চে গিয়ে। কিন্তু ফায়ারফক্স ব্যবহারকারীরা গুগল ফিচার সার্চ এ্যাড-অন্স দ্বারা। এজন্য https://addons.mozilla.org/en-US/firefox/addon/14394 থেকে এ্যাড-অন্সটি ইনস্টল করে ফায়ারফক্স রিস্টার্ট করুন। এখন দেখবেন নতুন একটি টুলবার এসেছে। এখানে Search ড্রপডাউনে ক্লিক করে যে বিষয়ে সার্চ করতে চান নির্বাচন করে ডানের টেক্সট বক্সে যা সার্চ করবেন তা লিখে Go বাটনে ক্লিক করলেই হবে। ফলে গুগল সার্চের সর্বোচ্চ সুবিধা পেতে পারবেন সহজেই।

ফায়ারফক্সে ডাউনলোড শেষে কম্পিউটার বন্ধ হবে

জনপ্রিয় ওপেনসোর্স ওয়েব ব্রাউজার মজিলা ফায়ারফক্সে ডাউনলোড শেষে যদি সয়ংক্রিয়ভাবে কম্পিউটার বন্ধ হতো তাহলে অনেকেই রাতে বা প্রয়োজনীয় সময়ে বড় বড় ফাইল ডাউনলোড শুরু করে অন্যত্র যেতে পারতো নিশ্চিন্তে। অটো শার্টডাউন এ্যাড-অন্স দ্বারা এই সুবিধা পাওয়া যাবে। এ্যাড-অন্সটি https://addons.mozilla.org/en-US/firefox/addon/5452 থেকে ইনস্টল করে ফায়ারফক্স রিস্টার্ট করে নিন। এবার স্ট্যাটাসবারে দেখুন অটো শার্টডাউন আইকন এসেছে। আইকনে উপরে ক্লিক করলে অটো শার্টডাউন সক্রিয় হবে, তাহলে চলতে থাকা ডাউনলোডগুলো শেষ হলে ম্যাসেজ আসবে এবং নির্দিষ্ট সময় পরে কম্পিউটার বন্ধ হয়ে যাবে। কোন অপশনসের পরিবর্তন আনতে চাইলে উক্ত আইকনে মাউসের ডান বাটন ক্লিক করে Options বা টুলস>এ্যাড-অন্স থেকে এ্যাড-অন্স এর Options গিয়ে করতে পারবেন।

ফায়ারফক্স এখন বাংলাতে

মুক্ত এবং ফ্রি হবার কারণে ওয়েব ব্রাউজার মজিলা ফায়ারফক্স এখন বেশ জনপ্রিয়। আরো জনপ্রিয় করতে মজিলা সমপ্রতি আটটি ভাষাতে বেটা সংস্করণ (৩.০.৩) অবমুক্ত করেছে। এই আটটি ভাষার মধ্যে ভারতীয় কয়েকটি ভাষা রয়েছে। আর এর মধ্যে আমাদের মাতৃভাষা বাংলা সংস্করণও আছে। এর ফলে এখন থেকে আমরা বাংলা ভাষার ইন্টারফেসের ফায়ারফক্স ব্যবহার করতে পারবো। ফায়ারফক্সের যেকোন ভাষার সর্বশেষ সংস্করণ www.mozilla.com/en-US/firefox/all.html#languages থেকে ডাউনলোড করা যাবে। বাংলা ভাষার এই ফায়ারফক্সটি উইন্ডোজসহ অনান্য অপারেটিং সিস্টেম লিনাক্স এবং ম্যাকের জন্য আলাদা আলাদা সংস্করণ ডাউনলোড করা যাবে। সকল ইন্টারফেস বাংলাতে হলেও ইংরেজী ইন্টারফেসের সকল হট কী এবং শটকাট কী ঠিক রাখা হয়েছে। বাংলা ইন্টারফেসের ফায়ারফক্স ব্যবহার করতে হলে আপনার কম্পিউটার (অপারেটিং সিস্টেম) অবশ্যই বাংলা (ইউনিকোড) সমর্থিত হতে হবে।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

অডিও ক্যাসেটের গান mp3 তে রুপান্তর করা

আমার সংগ্রহে অনেক অডিও ক্যাসেট আছে এক সময় এসব ক্যাসেট নিয়মিত শুনতাম। এখন ক্যাসেট প্লেয়ারের জায়গা দখল করে নিয়েছে সিডি/এমপি৩ প্লেয়ার। তাই ক্যাসেটগুলো আর শোনা হয় না। কিন্তু মাঝে মাঝে কিছু গান খুব মিস করি কারন গানগুলোর কোন সিডি বের হয়নি অডিও ক্যাসেটেই শুধু ছিল। ফলে আর শুনতে ও পারিনা। আমার মনে হয় অনেকের ক্ষেত্রেই এই ব্যাপারটা প্রযোয্য। আসুন আফসোস না করে দেখি কিভাবে গানগুলোকে ডিজিটাল ফরম্যাটে যেমন এমপি৩ তে রুপান্তর করা যায়।

আপনার যা প্রয়োজন হবে:
১. একটি ক্যাসেট প্লেয়ার অথবা ওয়াকম্যান
২. একটি স্টেরিও প্যাচ কর্ড(যা সাধারনত কম্পিউটার থেকে সাব ওফারের সংযোগ দেওয়ার জন্য ব্যবহার করা হয়)। আপনি খুব সহজেই এটি বানিয়ে নিতে পারেন। বাজার থেকে দুটো স্টেরিও জ্যাক কিনে তিন পেয়ারের একটা ক্যাবলের(মাউসের ক্যাবল হলেও চলবে) দুই প্রান্তে সংযোগ করুন। খেয়াল রাখবেন তারের এক প্রান্ত একটা জ্যাকের যে পিনে লাগিয়েছেন অপর প্রান্ত অপর জ্যাকের সেই পিনেই লাগাবেন। ব্যাস হয়ে গেল স্টেরিও প্যাচ কর্ড।
৩. Audacity ও LAME MP3 encoder অথবা যেকোন অডিও রেকর্ডিং সফটওয়্যার। আমি অডাসিটি দিয়েই দেখাব।
Download Audacity
Download LAME MP3 encoder
যেভাবে করবেন:
অডাসিটি ইনস্টল করুন। lame-xxx.zip ফাইল থেকে lame_enc.dll ফাইলটি C:\Program Files\Audacity\Plug-Ins লোকেশনে দিন। অডাসিটি রান করুন। Edit–>Preferences ক্লিক করুন। Audio I/O ট্যাবে Channels: 2(Stereo) সিলেক্ট করুন। File Formats ট্যাবে Find Library বাটনে ক্লিক করে ইয়েস দিন। C:\Program Files\Audacity\Plug-Ins গিয়ে lame_enc.dll ফাইলটি সিলেক্ট করে ওপেন ক্লিক করুন। ওকে দিন। এবার স্টেরিও প্যাচ কর্ডটির একপ্রান্ত ক্যাসেট প্লেয়ারের হেডফোন জ্যাকে প্রবেশ করান এবং অপর প্রান্তটি সাউন্ড কার্ডের লাইন ইন জ্যাকে প্রবেশ করান। ক্যাসেট প্লেয়ারে যেকোন একটা ক্যাসেট প্লে করুন। আপনার পিসির স্পীকারে গান শোনা যাবে। অডাসিটির মিক্সার টুলবারে লাইন ইন সিলেক্ট করুন।

ইনপুট লেভেল মিটারে সিলেক্ট করুন Monitor Input।

ভলিউম লেভেল দেখা যাবে। ইনপুট ভলিউম এমনভাবে এডজাষ্ট করুন যাতে লেভেল সব সময় হাই হয়ে না থাকে। এবার রেকর্ড বাটন প্রেস করে রেকর্ড শুরু করুন সামান্য রেকর্ড হওয়ার পর স্টপ বাটন প্রেস করে রেকর্ডিং বন্ধ হবে। প্লে করে দেখুন গান বেশি ফাটা ফাটা মনে হলে লেভেল আরো একটু কমান আর সাউন্ড কম মনে হলে লেভেল আরো একটু বাড়ান আবার রেকর্ড করে দেখুন। সাউন্ড লেভেল আপনার মনের হলে ক্যাসেট প্লেয়ারে গানটি প্রথম থেকে প্লে করুন এবং রেকর্ড বাটনে প্রেস করুন গান শেষ হলে স্টপ বাটন প্রেস করুন। File–> Export As MP3 তে ক্লিক করে গানটি সেভ করুন।

 

Advertisements
This entry was posted in Uncategorized. Bookmark the permalink.

One Response to Welcome to this site. Thanks for visit this site.

  1. Mr WordPress says:

    Hi, this is a comment.
    To delete a comment, just log in, and view the posts’ comments, there you will have the option to edit or delete them.

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s